আবু মারওয়ান। সিরিয়ার এই নাগরিক স্ত্রীকে ছুরি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে। শুধু তাই নয় হত্যার পর রক্তমাখা হাতেই ফেসবুকে লাইভ করেছে তিনি। খবর ডেইলি মেইল। স্ত্রী তার কথার বাধ্য না হওয়ায় ছোট মেয়ের সামনেই স্ত্রীকে কুপিয়ে খুন করেছেন। আর কিভাবে খুন করেছেন সেই বিবরণ দিয়ে রক্তমাখা হাতেই ফেসবুক লাইভ করেন তিনি। লাইভের ক্যাপশনে লিখেছেন, স্বামীকে বিরক্ত করলে এরকম শাস্তি পাওয়া উচিত। যে সব নারী স্বামীদের বিরক্ত করেন, তাদের শিক্ষা দিতেই এ লাইভ ভিডিও।

ভিডিওটি শেয়ার করার জন্য ফেসবুক ব্যবহারকারীদের আহ্বানও জানান তিনি। এ কাজে ছেলেকেও দলে টেনে নিয়েছেন। বাবার প্রতি তীব্র আনুগত্য থেকে ছেলেও ভিডিও শেয়ারের আহ্বান জানিয়েছে। সিরিয়ার বাসিন্দা আবু মারওয়ান দীর্ঘদিন ধরে জার্মানিতে শরণার্থী হিসেবে বসবাস করে আসছেন। দুই ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে ওই দম্পতির। অনেকদিন আগে স্ত্রীর সঙ্গে বিচ্ছেদ হয় মারওয়ানের। আদালতের নির্দেশে তিন ছেলেমেয়েই সাবেক স্ত্রীর তত্ত্বাবধায়নে ছিল।

মাঝে মাঝেই স্ত্রীকে বিরক্ত করতো মারওয়ান। বেশ কিছুদিন ধরে নতুন আবদার শুরু করেছিল। বিচ্ছেদ ভুলে গিয়ে ফের একসঙ্গে থাকার কথা বলে। তবে তা মেনে নেননি স্ত্রী। তাতেই রেগে যায় মারওয়ান। ছেলেকে সাক্ষী রেখে ছুরি দিয়ে ক্ষতবিক্ষত করে স্ত্রীকে। পুলিশকে খবর দেয় মারওয়ানের মেয়ে। পুলিশ এরইমধ্যে আবু মারওয়ানকে গ্রেপ্তার করেছেন।

Share.

About Author

Leave A Reply